গীতিকা
Education

বৈষ্ণব পদাবলি

বৈষ্ণব পদাবলি

  • পদাবলি হলাে বৌদ্ধ বা বৈষ্ণবীয় ধর্মের গুঢ় বিষয়ে সৃষ্টি।
  • শ্রীচৈতন্যদেবের বৈষ্ণব ধর্মদর্শন এবং রাধা-কৃষ্ণের প্রেম-লীলা অবলম্বনে বৈষ্ণব সাহিত্য সৃষ্টি হয়।
  • বিদ্যাপতি, চণ্ডীদাস, জ্ঞানদাস, গােবিন্দ দাস বৈষ্ণব পদাবলির চার মহাকবি ।
  • বিদ্যাপতি ও গােবিন্দ দাস লিখেছেন ব্রজবুলি ভাষায় এবং চণ্ডীদাস লিখেছেন খাঁটি বাংলা ভাষায়।
  • বৈষ্ণব পদকর্তাদের মহাজন বলা হয়।
  • পদাবলির শ্রেষ্ঠ কবি চণ্ডীদাস।
  • ব্রজবুলি একটি কৃত্রিম কবিভাষা।
  • বাংলা ও মৈথিলী ভাষা মিলে এ ভাষার সৃষ্টি।
  • মিথিলার কবি বিদ্যাপতি বাঙালি না হয়েও বৈষ্ণব সাহিত্যে গুরুস্থানীয় হয়ে আছেন।
  • বিদ্যাপতির উপাধি ছিল—কবিকণ্ঠহার তাকে মৈথিলি কোকিল’ এবং অভিনব জয়দেব’ নামেও ডাকা হয়।
  • বিদ্যাপতি মিথিলার রাজা শিবসিংহের রাজসভার কবি ছিলেন।
  • শিবসিংহ তাকে কবি কণ্ঠহার উপাধি প্রদান করেন।
  • বৈষ্ণব কবিতার সর্বপ্রথম পদ সংকলন করেন বাবা আউল মনোেহর দাস।
  • তার সংকলনের নাম ‘পদসমুদ্র’।
  • বাংলায় একটি পংক্তি না লিখলেও বাংলা সাহিত্যে চৈতন্যদেবের নামে একটি যুগের সৃষ্টি হয়েছে, শ্রী চৈতন্যদেব ছিলেন বৈষ্ণব ধর্মের প্রচারক ।
  • শ্রী চৈতন্যদেবের প্রকৃত নাম বিশ্বম্ভর। বাল্যনাম নিমাই । জন্ম- ১৪৮৬ খ্রি. নবদ্বীপে, মৃত- ১৫৩৩ পুরীতে।
  • বাংলায় চৈতন্যদেবের প্রথম জীবনী গ্রন্থ রচনা করেন বৃন্দাবন দাস চৈতন্য-ভাগবত’ নামে।

গুরুত্বপূর্ণ বৈষ্ণব পদ :

  • শুনহ মানুষ ভাই, সবার উপরে মানুষ সত্য তাহার উপরে নাই (চণ্ডীদাস)।
  • আমারি বধূয়া আন বাড়ি যায়— আমারি আঙিনা দিয়া (দ্বিজ চণ্ডীদাস)।
  • সুখের লাগিয়া এ ঘর বাঁধিনু অনলে পুড়িয়া গেল (জ্ঞানদাস)।
  • রূপ লাগি আঁখি ঝুরে গুণে মন ভাের প্রতি অঙ্গ লাগি কান্দে প্রতি অঙ্গ মাের (জ্ঞানদাস)।

Related posts

বিশ্ববিদ্যালয় পড়তে আপনাকে যে বিষয়গুলো পড়তে হবে

Career School bd

যুগ সন্ধিক্ষণ ও ঈশ্বরচন্দ্র গুপ্ত

Career School bd

মঙ্গল কাব্য

Career School bd

Leave a Comment

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More